অস্বাস্থ্যকর খাবারের তালিকা: সচেতন হোন, সুস্থ্য থাকুন

স্বাগতম পাঠকগণ! স্বাগতম এই সচেতন পোষণ সম্পর্কিত অনুশীলনে। যে খাবার আপনি খাচ্ছেন তা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য কতটা ভালো তা অবলম্বন করে জানা উচিত। কারণ অস্বাস্থ্যকর খাবার আপনার শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তাই আজকে সর্বপ্রথমে আমরা এসব খাদ্য পণ্যগুলির তালিকা নিয়ে আলোচনা করবো।

অস্বাস্থ্যকর পণ্যসমূহ

অস্বাস্থ্যকর পণ্যসমূহ হলো সেসব খাদ্য পণ্যসমূহ যা অস্বাস্থ্যকর ও সেটাই কিন্তু স্বাদহীন। এই পণ্যগুলির মধ্যে থাকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান নষ্ট হয়ে যায় এবং সাধারণত খাবারের মতো মানের স্বাদ সরায় চলে যায়। এই পণ্যগুলির উদাহারণ হলো সাঁওতার পণ্য, ব্রেডক্রাম্বস, নয়লনগর্জিত মাছ, ডাইরি প্রোডাক্টস (ভ্রমণবাসীরা মাছের থাকা ভার্জিন তেলও চিরকাল ঠিক রাখার জন্য নয়লনসহ সুস্থ্য এবং মজাদার খাবার পরিবেশন করে)।

অস্বাস্থ্যকর পণ্যসমূহ স্বাস্থ্যকর নয়, কারণ এগুলো অস্বাস্থ্যকর উপাদান বা প্রসেসিং প্রক্রিয়ার ফলে সংঅগ্রহণ করে। অস্থির পণ্যগুলি সেবন করলে স্বাস্থ্য সমস্যা গ্রস্ত হতে পারে যেমনঃ কোলের সমস্যা, হৃদরোগ, ওজন বাড়ানো বা কমানো, মধুমেহ, প্রতিবন্ধী সমস্যা, পাচনশক্তির সমস্যা, হালকা থাকার সমস্যা, মানসিক বিপদ ইত্যাদি।

অস্বাস্থ্যকর পণ্যসমূহ ও তার প্রভাব

অস্বাস্থ্যকর পণ্যসমূহ স্বাস্থ্যে অসুস্থতা এবং প্রতিক্রিয়ার বিভিন্ন প্রকার উত্পাদন করতে পারে। এগুলো হয়ে থাকতে পারে শরীরে খাদ্য পদার্থ নষ্ট করে পুষ্টি উপাদান হারানো, মেটালিক পদার্থ যেমন লেড (সাধারণত মাছ ও খাবারের উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয়) গ্রস্ত হতে পারে এবং ভিটামিন ও খাদ্য গন্ধ হারায় যায়।

উদাহরণ: অস্বাস্থ্যকর পণ্যসমূহ

পণ্যের নামউপাদান নষ্টিকারক বা অস্থিরকারক উপাদানপ্রভাব ও সমস্যা
সাঁওতার পণ্যক্যানসার যুক্তিসমূহ, হাইড্রোজেনেটেড তেল, মজার ছাড়া, খারাপ প্রোটিনমধুমেহ, হৃদরোগ, ওজন বাড়ানো বা কমানো, পাচনশক্তির সমস্যা
ব্রেডক্রাম্বসঅস্থির পানি, রং, সুস্থ্য খাদ্যরস, সুগার, ব্যান ঋণ করার উপাদানপ্রতিবন্ধী সমস্যা, হালকা থাকার সমস্যা, মানসিক বিপদ
নয়লনগর্জিত মাছমাছে পাওয়া হওয়া হাইড্রোজেনেটেড তেল, লেডকোলের সমস্যা, হৃদরোগ, প্রতিবন্ধী সমস্যা
ডাইরি প্রোডাক্টসঅস্থিস্থানীয় মুচলেখকত্বের প্রোটিন, নয়লনসহ স্বাস্থ্যকর খাদ্য পদার্থ হারানোরক্তচাপের বৃদ্ধি, হৃদরোগ, ওজন বাড়ানো বা কমানো

সেইম থেকে আমরা সবাই জানি যে, অস্থির পণ্যগুলি স্বাদহীন এবং স্বাস্থ্যকর নয়। এই পণ্যগুলি আপনার স্বাস্থ্য উপকারপ্রদ হতে পারে না। তাই সচেতন হয়ে নিজের ও আপনার পরিবারের স্বাস্থ্যের জন্য স্বাস্থ্যকর খাবার নির্বাচন করুন।

প্রসেস করা খাবার

প্রসেস করা খাবার হলো যে খাবার যা উত্পাদিতে প্রক্রিয়াজাত করা হয়েছে বা প্রক্রিয়াজাত উপকরণ সংযোজন করা হয়েছে। এই খাবারগুলি সাধারণত পাচনযোগ্যতা বা স্বাস্থ্যকর গুণাবলী হারানো যায়, যেহেতু জীবাণুগত বা রসায়নিক প্রক্রিয়াজাত উপকরণ ব্যবহার হয়েছে।

এই খাবারগুলি সাধারণত রস অবশিষ্ট থাকলেও সহজে ভিটামিন, খনিজ এবং অন্যান্য পুষ্টিকর উপাদানগুলি হারায় যায়। প্রসেস করা খাবারে অ্যাডড শুগার, সস, প্রেজারভিক্টিভ, খাদ্য রং এবং অন্যান্য রসায়নিক পদার্থগুলি থাকতে পারে, যা অস্বাস্থ্যকর হতে পারে।

ক্যানপ্রাড মাংস, ক্যানপ্রাড মুরগি বা মাছ, চীজ, প্যাকেটেড ব্রেড, ক্যানপ্রাড মাছ অযোডিন, সস, টিন-ক্যান ফল ও প্রসেস করা মাংসের পণ্যসমূহ একটি যাতনামূলক পণ্যের তালিকায় থাকতে পারে।

এই প্রসেস করা খাবারগুলি বিভিন্ন জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে, যেমন- স্বাস্থ্যকর থাকতে চাইলে একটি সাবস্টিচিউট প্রক্রিয়ায় করা খাবার, সংশ্লিষ্ট পুষ্টিগুলির উপকরণ বা সরবরাহকারীদের একটি সংশ্লিষ্ট কার্যালয় বা স্থানে উপকরণ সরবরাহ করতে পারে।

See also  সুন্দর প্রোফাইল পিক ডাউনলোড | নিউ প্রোফাইল পিক | ফেসবুক প্রোফাইল পিক

প্রসেস করা খাবারের কিছু উদাহরণসমূহ:

  • স্যুপের মিক্স পাউডার
  • প্রেজার্ভড ম্যাটো পাউচ
  • প্রসেস করা ক্রীম বিস্কুট
  • ক্যানেড মিল্ক
  • কার্নফ্লেক্স

প্রসেস করা খাবারের বিভিন্ন উপকরণ বা প্রক্রিয়ায় উপকরণ থাকতে পারে, যা পরিমাণগতভাবে গুণাবলী ও পুষ্টিকর তার থেকে বিভিন্ন হতে পারে।

প্যাকেজড খাবার

আমরা আধুনিক বিশ্বে জীবনযাপনের একটি অপরিহার্য অংশ হিসেবে প্যাকেজড খাবার ব্যবহার করছি। বিভিন্ন কারণে মানুষেরা তাদের সময়, শ্রম এবং সুবিধার জন্য প্যাকেজড খাবার কেনার দিকে তিনি উদ্বুদ্ধ হয়েছেন। সহজ প্যাকেজিং, দীর্ঘদিন সংরক্ষণযোগ্যতা এবং ব্যবহারের সহজতা এই কারণে প্যাকেজড খাবার অনেকের জীবনের ধারণাগুলির অংশ হয়ে উঠেছে।

তবে, এই প্যাকেজড খাবার সম্পর্কে সতর্ক হওয়া উচিত। এই খাবারগুলির কিছু অস্বাস্থ্যকর পাকস্থলী রয়েছে যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। এছাড়াও এই প্যাকেজড খাবার মূলত প্রসেস করা হয় যা ওষুধসম্পন্ন খাবারের কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপাদানসমূহের মান কমিয়ে দেয়।

এখানে কিছু সাধারণতত্ত্বী প্যাকেজড খাবার উল্লেখ করা হল:

আর্গানিক বা প্রাকৃতিক

আর্গানিক বা প্রাকৃতিক প্যাকেজড খাবার বরংশমূলক পদার্থের ব্যবহারে ভিত্তি করে যা কোনভাবেই কোন ক্ষতি করতে পারে না। সাধারণত এই খাবারগুলি পারিষ্কার ও স্বাস্থ্যকর খাবার বলে পরিচিত। এই খাবারের ধারণাগুলি আন্তজন্য এবং ভিটামিন, খনিজ এবং প্রোটিনের উচ্চ মাত্রার সাথে পুষ্টিগুলি সমন্বয় করে

শুগার ও প্রসেস করা মিষ্টি

প্যাকেজড খাবারের একটি জনপ্রিয় অংশ হল শুগার ও প্রসেস করা মিষ্টি পণ্য। আমরা সাধারণত এই খাবারগুলি আনন্দ ও সুস্থ্য ধারণার কারণে ব্যবহার করি। তবে, এই খাবারে বেশি পরিমাণে শুগার ও প্রসেস করা মিষ্টি হলে সেগুলির দুর্ভাগ্যজনক প্রভাব আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য হতে পারে।

এই প্যাকেজড খাবার বিষয়ক তথ্যের আলোকে আপনি নিজের জীবনযাপনে সচেতন হতে পারেন এবং আপনার শরীরের জন্য স্বাস্থ্যকর খাবার নির্বাচন করতে পারেন। স্বাস্থ্যকর খাবার ব্যবহার করে আপনি নিজেকে ভালো যেমন পাচ্ছেন, সেমন অনুভব করতে পারেন।

সুগার ও মিষ্টি পণ্যসমূহ

সুগার ও মিষ্টি পণ্যসমূহ আমাদের প্রতিদিনের জীবনে অনিঃশোক অংশ। তবে দৈনিক খাবারে অস্বাস্থ্যকর মাত্রায় সুগার ও মিষ্টি পণ্য সেবন করলে আপনার স্বাস্থ্য প্রভাবিত হতে পারে। সম্পূর্ণ ইনপ্রোসেস হয়ে তৈরি না বলে পুরোপুরি স্বাস্থ্যকর নয়।

এক্ষেত্রে আমরা সাধারণত যে সুগার ব্যবহার করি, সেটা হলো সাদা চিনি। সুগার আমাদের প্রধান শক্তি সোর্স, কিন্তু সাদা চিনির ব্যবহারের প্রাথমিক প্রয়োজনগুলি আমরা সম্পন্ন করতে পারি আমাদের খাদ্যের অন্যান্য উচ্চ গুনগুলি ব্যবহার করে। আমাদের দৈনিক মাত্রা থেকে যে খাবারের সাথে সুগার ও মিষ্টি সংযোগ করা হয়, সেগুলি আমাদের স্বাস্থ্য ভালোর জন্য প্রতিষ্ঠান হতে পারে।

যে সুগার ও মিষ্টি পণ্য আমাদের বেশি আকর্ষনীয় এবং সুস্বাদু লাগে, সেগুলি আসলে আমাদের জন্য কম উচ্চ করে যেতে পারে।

অন্যদিকে, উচ্চ মাত্রার সুগার ও মিষ্টি পণ্য হলে এগুলি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য একটি ঝুকিপূর্ণ অস্ত্র। এগুলি আমাদের রক্তের চর্বি প্রতিশত বৃদ্ধি করতে পারে, করা সহজ সর্তক পিপাসা পদার্থ। উচ্চ মাত্রার মিষ্টি পণ্য ভোজনে অতিরেকে প্রয়োজন হলে অতিরিক্ত ওজন বা মডিফাইড আডমিনিস্ট্রেশন প্রভাবিত করতে পারে, যা পুরোটাই অন্যতম খাদ্য সমস্যার মাধ্যমে প্রকাশ করে।

আমাদের সম্পূর্ণ খাদ্যটি সম্প্রতি সুগার ও মিষ্টি পণ্যগুলি থেকে যেমন সম্পূর্ণভাবে বাদ দেয়া যায়, সেটা সামগ্রিকভাবে আমাদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ভালো হতে পারে।

সুগার ও মিষ্টি পণ্যের পরিবর্তে আমরা প্রকৃত মিষ্টির সাথে সেবন করতে পারি, যেমন ফল এবং পানির মধ্য দিয়ে তৈরি জূস। এছাড়াও স্বাদিষ্ট বাদাম দুধ, দই, সাদা চিনির পরিবর্তে কাঠির শক্তিশালী পদার্থ গুলির সাথে বিছানো ভিটামিন এ এবং ইউরিয়াম থাকতে পারে।

  1. সাদা চিনির ব্যবহার হুক বা নিরস্ত্র হতে পারে।
  2. মিষ্টি পণ্য সেবনের খালি তালিকা থেকে আপনার মক্তূলপণ্যের লাভ নেওয়া যেতে পারে।
  3. স্বাদিষ্ট বাদাম দুধ ও দই আমাদের নিউট্রিশনাল প্রতারণার সাথে কার্যকরী সংযোগ প্রদান করতে পারে।
See also  জয়তুন তেলের উপকারিতা, ব্যবহার এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

ভার্জিন তেল ও হাইড্রোজেনেটেড তেল

ভার্জিন তেল এবং হাইড্রোজেনেটেড তেল হলো দুটি প্রধান ধরনের তেল যা আমাদের খাবারে ব্যবহৃত হয়। তবে এই দুটি তেলের উৎপাদন প্রক্রিয়া ও গুণগত বৈশিষ্ট্য পৃথক হয়ে থাকে।

ভার্জিন তেল হলো নিচের আকারের পাকা তেলগুলি:

  1. অলিভ অয়েল
  2. কোকোনাট অয়েল
  3. বন অকৃতজাত অয়েল

এই তেলগুলি পাকানো এবং প্রক্রিয়াজাত নয়, এটাই তাদের গুণগত মান বজায় রাখতে সাহায্য করে এবং এটি স্বাস্থ্যকর খাবারের একটি ভাল বিকল্প।

ভার্জিন তেল উচ্চ গুণমানের খাবার হিসাবে পরিচিত এবং তাদের ব্যবহারকারীদের জন্য উপকারকর। এটি হৃদরোগ এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে এবং ত্বক এবং চুল প্রকৃতিসম্পন্ন ও সুন্দর রাখে।

অন্যদিকে, হাইড্রোজেনেটেড তেল হলো প্রক্রিয়াজাত ও রিফাইন করা তেলগুলি যা বিভিন্ন উচ্চ তাপমাত্রায় প্রক্রিয়াজাত করে তৈরি করা হয়। এই তেলগুলি পারমাণবিক পরিবর্তনের মাধ্যমে তৈরি হয় যা তাদের গুণগত মানকে কমিয়ে আনে এবং ক্ষতিকারক হতে পারে।

এই তেলগুলির ব্যবহার অত্যন্ত বেশি হয় ধূমপান, ফলমূল সালাদ, টোস্ট এবং বেকারি পণ্যসমূহে। তবে এই তেলগুলির দ্বারা প্রস্তুত খাবারের গুণগত মান ন্যূনতম হয়ে যেতে পারে যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে।

ভার্জিন তেল ও হাইড্রোজেনেটেড তেল

এই বিভাগে আমরা ভার্জিন তেল ও হাইড্রোজেনেটেড তেলের উপর আলোচনা করব। ভার্জিন তেল একটি তেল ধরন যা আপার মালিকানাধীন ভান্ডারবিল্ট যা প্রথম সম্পর্ক অবগত মানুষের রসায়ন পদার্থ সম্পন্ন করে এমন সবজাকীয় তেলের মধ্যে জন্মানো হয়েছে। এই তালিকায় আমরা ভার্জিন তেল ও হাইড্রোজেনেটেড তেল দুটি পদার্থের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্যগুলি নিয়ে আলোচনা করবে।

ভার্জিন তেল

ভার্জিন তেল হলো অপ্রক্রিয় তেল যা শুধুমাত্র কাঁচা ফল ও সবজি থেকে প্রাপ্ত হয়। এটি যদিও পেয়াজ, আদা, রসুন, লেবুবাতা ইত্যাদি দ্বারা স্বাদ বা সুস্থতা প্রাপ্ত বৈকাল হলেও, এর মূল বৈশিষ্ট্য হলো এর তাপমাত্রা ও অমূল্য খাদ্যযোগ্য উপাদানগুলি অবগত রাখা। ভার্জিন তেল সাধারণত শুধুমাত্র মানব সেবা জনিত ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত হয়।

হাইড্রোজেনেটেড তেল

হাইড্রোজেনেটেড তেল হলো একটি প্রসেসযুক্ত তেল যা হাইড্রোজেন সাধারণত তাপমাত্রায় অন্তর্ভুক্ত করে। এই প্রক্রিয়ায় তেলের অক্সিজেনের উপর প্রভাব ফেলে এর বৈশিষ্ট্য পরিবর্ধিত হয়। এই প্রক্রিয়ায় তেলটি অবদান রাখে স্বাস্থ্যকর খাবার নয়, যদিও এটি বিপদজনক এসিড ও ঈর্ষণ ধারক বিষয়ে সাধারণ অবগতি নেই। হাইড্রোজেনেটেড তেল ব্যবহার করার পরিবর্তে ভার্জিন তেল ব্যবহার করা যেতে পারে যাতে স্বাস্থ্যবহিত উপকার থাকে।

See also  সেরা রোমান্টিক পিকচার গুলো ফ্রি ডাউনলোড করুন

সহায়ক যুক্তিসমূহ

অস্বাস্থ্যকর খাবার থেকে সুরক্ষিত থাকতে সহায়ক যুক্তিসমূহ ব্যবহার করা অত্যাবশ্যক। এই ধারণাটি অনুসরণ করার মাধ্যমে আপনি নিজের ও আপনার পরিবারের স্বাস্থ্য সম্পর্কে যত্ন নেওয়া যায়। আপনি নিম্নলিখিত সহায়ক যুক্তিসমূহ অনুসরণ করতে পারেনঃ

  • প্রথমে পদার্থের প্যাকেজিং দেখুন: অস্বাস্থ্যকর খাবারের সাথে সংযুক্ত প্যাকেজিং বহন করে যেতে পারে ক্ষতিকর, যেমন বিভিন্ন প্লাস্টিক প্যাকেজ বা টিন ক্যান। প্যাকেজিংটি দেখে অস্বাস্থ্যকর খাদ্যের সংকেত খুঁজে নিন এবং যত সম্ভব সহিষ্ণুতার সাথে অস্বাস্থ্যকর প্যাকেজিং থেকে দূরে থাকুন।
  • পণ্যের উৎপাদনের তথ্য পরীক্ষা করুন: পণ্যের উৎপাদনের তথ্য প্রতিটি দেখে নিন এবং উৎপাদনের প্রক্রিয়া প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানুন। আপনি অস্বাস্থ্যকর প্রসেস করা খাবার বা প্যাকেজড খাবার পরিপরিকারের সম্ভাবনার সঙ্গে থাকতে পারেন।
  • জানুন পণ্যে কি যুক্ত আছে: কেটাকুটি, প্রসেস করা পদার্থ, এসিড, প্রসারণ, রং বা স্বাদের প্রকাশ, বৈদ্যুতিনতা, গ্লুটেন এবং আরো অনেক কিছু হতে পারে যা অস্বাস্থ্যকর খাবারের সঙ্গে সম্পর্কিত হতে পারে। এই তথ্যগুলি একটি উচ্চ স্বাস্থ্যসম্পর্কের সাথে দেখতে সহায়তা করবে।
  • প্যাকেজিং এবং নিরাপত্তার তথ্য দেখুন: সরবরাহকারী প্যাকেজিং এবং নিরাপত্তার তথ্য পড়ে নিন। সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ অপাররটিউনিটির সেবা নিশ্চিত করতে দেখুন এবং কোম্পানির অনুসরণযোগ্যতা এবং গুরুত্বের বিষয়ে মতামত দেখুন।

উপরে উল্লিখিত সহায়ক যুক্তিসমূহ কেবলমাত্র শুরুতে যেতে পারেন। স্বাস্থ্যকর খাবার সংক্রান্ত আরও মার্মিক তথ্যের জন্য সরাসরি পেশ করার আগে উপযুক্ত গবেষণা করুন এবং স্বাস্থ্যসংক্রান্ত পেশায় কোনো মন্তব্যের জন্য স্বাস্থ্যকর পেশাদারদের সাথে কথা বলুন।

বাচ্চাদের জন্য অস্বাস্থ্যকর খাবার

বাচ্চাদের সুস্থ্য বিকাশের জন্য উচিৎ পুষ্টিকর ভোজন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে সহজেই বাচ্চারা স্বাদু খাবার পছন্দ করতে এবং অস্বাস্থ্যকর খাবার খেতে পারে। এই ধরনের কিছু খাবারের অপব্যবহার শিশুদের বিকাশ এবং স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

আপনার বাচ্চার স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য নিম্নলিখিত খাবারের গ্রেহণ বিবেচনা করা উচিত:

  1. কার্বনেটেড পানি: নিশ্চিত হুমকিয়ে দিন যে কার্বনেটেড পানি বাচ্চাদের জন্য অসুস্থকর। এটা খাবারে সম্পূর্ণ অপ্রয়োজনীয় শরীরের ক্যালোরি যুগ্ম যোগ করে।
  2. চিপস, বিস্কুট ও কেক: সচেতন হোন যে বাচ্চাদের জন্য চিপস, বিস্কুট এবং কেক খাদ্যে অতিরিক্ত চিনি এবং চর্বি যুগ্ম হতে পারে, যা বাচ্চাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।
  3. ভূনা খাবার: সর্দিমান খাবার যেমন আলু ভাজি, পটল ভাজি, ডিমের পাকোড়া ইত্যাদি বাচ্চাদের স্বাস্থ্যকর নয়। এই ধরনের খাবারগুলো অতিরিক্ত তেল এবং ক্যালোরি ধারণ করে।
  4. বাচ্চাদের প্যাকেজড জুস ও সরবত: বাচ্চাদের জন্য জুসে অতিরিক্ত চিনি থাকতে পারে এবং সরবত গ্রেহণ করলে তারা সুস্থ্য প্রতিষ্ঠা করতে পারে।

সেনিটাইজার প্যানেল ব্যবহার করতে পছন্দ করুন এবং সেগুলো সন্তুষ্টির জন্য একটি নিশ্চিতকারক পর্যবেক্ষণ কী উপযোগী হতে পারে।

এই সকল অস্বাস্থ্যকর খাবারের বিকল্প হিসাবে বাচ্চাদের সুস্থ্য বিকাশের জন্য বিভিন্ন প্রকার পুষ্টিকর খাবার দিতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ, তাজা ফল এবং শাকসবজি বাচ্চাদের স্বাস্থ্য ও পুষ্টি বিকাশে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাস্থ্যকর স্নাকসওয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে, যেমন ফ্রুট চাট, আলুর পপড় ইত্যাদি।

সমাপ্তি

এই প্রবন্ধে আমরা অস্বাস্থ্যকর খাবারের তালিকা এবং প্রভাব সম্পর্কে আলোচনা করেছি। আমরা আপনাদের জানাতে চাইলাম যে, খুব সাধারণ মানুষগুলোর জন্যে এই তত্ত্বাবধানগুলি মাথায় রেখে স্বাস্থ্যকর খাবার পরিবর্তন করার প্রয়োজন আছে। আপনি নিজের ও আপনার পরিবারের সুস্থ্যকর থাকার জন্য খেলাপী খাবারগুলি এড়িয়ে চলতে পারেন।

আরো পড়ুন: আপনার জন্য স্বাস্থ্যকর খাবারের তালিকা

Rate this post
Faaris Khan
Faaris Khan
Articles: 6

One comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *