এলোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম

এলোভেরা জেলের কথা কম বেশি আমরা সবাই জানি। এটি এমন এক ভেষজ উদ্ভিদ যা থেকে আমাদের শরীরের ভিতরকার বা উপরিভাগ যেমন ত্বক, চুল ইত্যাদি নানা অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের উপকার হয়ে থাকে। হাজার হাজার বছর ধরে প্রাকৃতিক এই উপাদানটি ব্যবহার হয়ে আসছে মানুষের সৌন্দর্য বর্ধনে।

চুলের যত্নে এলোভেরা জেল নানা ভাবে ব্যবহার করা হয়। অনেকের চুল অনেক বেশি রুক্ষ, জীর্ণ শীর্ণ প্রাণহীন হয়ে পড়েছে, চুল ফাটা ভাব চলে এসেছে এসব সমস্যার ক্ষেত্রে এলোভেরা জেল অনেকটাই আশীর্বাদ হিসেবে কাজ করে থাকে।

চুল নিয়ে আমাদের সমস্যা আর স্বপ্নের কোনো শেষ নেই। কিন্তু এই চুলের ড্যামেজ এর জন্য আমাদের এখনকার জীবনযাপনই বহুলাংশে দায়ী। এলোভেরা জেল ব্যবহার করে আমাদের চুল পড়া কমিয়ে একে ঝলমলে উজ্জ্বল এবং প্রানবন্ত করার কৌশল নিয়েই আলোচনা করবো আমাদের আজকের পোস্টে।

মাথার ত্বকের যত্নে এলোভেরার ভূমিকা

এলোভেরা তে ভিটামিন এ, ভিটামিন ই, ভিটামিন বি, ভিটামিন সি প্রচুর পরিমাণে বিদ্যমান। এতে আরো র‍য়েছে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাটি এসিড, জিংক এবং আয়রন যা আমদের মাথার ত্বককে স্বাস্থ্যকর করে তোলে।

এটি মাথার ত্বকের মৃত কোষ দূর করে চুলকে ভিতর থেকে নমনীয় করে তোলে। এলোভেরা তে বিদ্যমান জিংক মাথার ত্বকে কোনো ইনফেকশন বা ইনফ্লেমেশন হতে দেয়না। এই সমস্ত কারণের জন্য এলোভেরা ব্যবহারের ফলে চুল পড়া বন্ধ হয় এবং নতুন চুল গজানো সম্ভব হয়।

আরো পড়ুনঃ এলোভেরার উপকারিতা ও অপকারিতা

চুলের যত্নে এলোভেরার হেয়ার প্যাক

প্রথম পদ্ধতি

অ্যালোভেরা জেল, মেথি এবং ক্যাস্টর অয়েল দিয়ে বানানো হেয়ার মাস্ক

উপকরণ

  • এলোভেরা জেল ১-২ কাপ
  • মেথির গুড়ো ২-৩ চা চামচ
  • ক্যাস্টর অয়েল ২ চা চামচ
  • আপনার চুলের গঠন এবং লম্বা অনুযায়ী পরিমাণ কমবেশি হতে পারে।

পদ্ধতি

প্রথমেই একটি পরিষ্কার পাত্রে ১-২ কাপ এর মত এলোভেরা জেল ব্লেন্ড করে নিয়ে নিন। তারপর এতে ২ চা চামচ ক্যাস্টর অয়েল এবং এরপর ২-৩ চা চামচ মেথি গুঁড়ো যোগ করে ভালোভাবে নাড়তে থাকুন যতক্ষণ না পর্যন্ত একটি স্মুথ পেস্ট না হচ্ছে।

রাতে ঘুমাতে যাবার আগে এই হেয়ার প্যাক মাথার ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন। তারপর একটি শাওয়ার ক্যাপ বেঁধে ঘুমিয়ে পরুন। সকালে ঘুম থেকে উঠে ভালো করে শ্যাম্পু করে নিন এই হেয়ার প্যাক সপ্তাহে দুদিন করে ব্যবহার করুন। এতে চুলের গোড়া মজবুত হবে, চুল ঘন এবং চুলের রুক্ষতা দূর হবে।

দ্বিতীয় পদ্ধতি

এলোভেরা ও নারিকেল তেলের হেয়ার প্যাক

উপকরণ

  • এলোভেরা জেল ১-২ কাপ
  • নারিকেল তেল ৩ চা চামচ
  • মধু ৩ চা চামচ

পদ্ধতি

একটি পরিষ্কার পাত্রে এলোভেরা জেল এর সাথে মধু, নারিকেল তেল মেশান এবার এই মিশ্রণটি ভালো করে চুলে এবং মাথার ত্বকে লাগিয়ে নিন। তারপর শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন। এক ঘন্টা পর চুল ধুয়ে নিন। তারপর পুনরায় শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

চুল পড়া বন্ধ হয়ে চুলের কন্ডিশনারের কাজ করে। মাসে ৩-৪ বার ব্যবহার করতে পারেন এই হেয়ার প্যাকটি। এটি এটি চুলের গোড়া মজবুত করে। চুল পড়া বন্ধ করে।

আরো পড়ুনঃ নারিকেল তেলের উপকারিতা, জয়তুন তেলের উপকারিতা, ব্যবহার এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া, চুলে তেল দেয়ার সঠিক নিয়ম – How To Apply Hair Oil

তৃতীয় পদ্ধতি

অ্যালোভেরা ও পেঁপের হেয়ার প্যাক

উপকরণ

  • পাকা পেঁপে
  • এলোভেরা জেল ২ কাপ
  • অলিভ ওয়েল / নারিকেল তেল ৩ চা চামচ

পদ্ধতি

একটি পরিষ্কার পাত্রে ১০-১৫ পিস পাকা পেঁপের টুকরো নিয়ে তা ভালো ভাবে ব্লেন্ড করে নিন। এতে এলোভেরার জেল এক থেকে দুই কাপ পর্যন্ত মিক্স করুন। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী কম বা বেশিও নিতে পারেন। তিন চা চামচ অলিভ অয়েল নিন। এলোভেরা জেল ও বাকি দুটি উপাদান ভাল করে মিশিয়ে নিন।

আপনার কাছে অলিভ ওয়েল না থাকলে সমপরিমাণ নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন। এবার এই মিশ্রণটি ভালো করে লাগিয়ে নিন। শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন। একঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এই হেয়ারপ্যাক আপনার চুল গজাতে সাহায্য করবে এবং চুলের রুক্ষতা দূর করবে।

আরো পড়ুনঃ পেঁপের উপকারিতা ও অপকারিতা, দুধ দিয়ে ত্বকের যত্ন এবং চুলের যত্ন নেয়ার নিয়ম, চুল পড়া বন্ধ করার উপায়- ১৯টি সহজ টিপস, 8 টি খাবার যা চুল পড়ার কারণ

চতুর্থ পদ্ধতি

এলোভেরা জেল, ক্যস্টর ওয়েল, অলিভ ওয়েল, মেথির গুড়ো, এবং পেয়াজের রস দিয়ে বানানো হেয়ারপ্যাক

উপকরণ

  • মেথির গুঁড়া ৪ চা চামচ
  • নারিকেল তেল ৩ চা চামচ
  • অলিভ অয়েল ২ চা চামচ
  • ক্যাস্টর অয়েল ১ চা চামচ
  • এলোভেরা জেল ১/২ বাটি
  • মাঝারি সাইজের একটি সম্পূর্ণ পেঁয়াজের রস
  • আরো ভালো ফলাফল এর জন্য চাইলে একটি ডিম ফেটে ব্যবহার করতে পারেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: এই উপকরণ সমূহ মাঝারি থেকে ঘন যাদের চুল তাদের জন্য যথেষ্ট। কারো যদি চুল আরো কম বা ছোট হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে তারা উপকরণগুলো কিছুটা কমিয়ে নিবেন।

পদ্ধতি

প্রথমেই একটি মাঝারি সাইজের পেঁয়াজ নিয়ে কুচি করে কেটে ব্লেন্ডার করে নিন। একটি পরিষ্কার কাপড়ের ছাকনি দিয়ে পেঁয়াজের রস আলাদা করে ছেক নিন। এরপর এতে ১/২ বাটি এলোভেরা জেল যোগ করুন।

এবার অন্য একটি পাত্রে একটি ডিম ফাটিয়ে তা ভালোভাবে নেড়ে নিন। এবার এই তিনটি উপকরণ ভালোভাবে মিক্স করে নিন। এরপর এতে পরিমাণ মতো মেথির গুঁড়া,নারিকেল তেল, ক্যাস্টর অয়েল অলিভ অয়েল যোগ করে নিন। মিশ্রণটি ভালোভাবে নাড়তে থাকুন।

যদি দেখেন কোনো উপাদান ভালো ভাবে মিক্স হচ্ছে না সেক্ষেত্রে সম্পূর্ণ মিশ্রণটি একবার ব্লেন্ড করে নিতে পারেন। এতে স্মুথ একটি পেস্ট তৈরি হবে।

এই হেয়ার প্যাক ব্যবহার করলে চুলের বৃদ্ধির পাশাপাশি চুলের গোড়া মজবুত হওয়া, এমনকি চুল উজ্জ্বল হওয়া, চুলের রুক্ষতা দূর করা সহ নানা সমস্যার সমাধান হবে। এখানে ব্যবহার করা প্রতিটি উপাদান আপনার চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে অনেক বেশি কার্যকরী।

এর এক দুটি উপাদান যদি আপনার বাসায় নাও থেকে থাকে তাহলে বাকি উপাদানগুলো দিয়েও আপনি হেয়ার প্যাকটি তৈরি করতে পারেন। এই হেয়ার প্যাক টি মাসে এক থেকে দু’বার ব্যবহার করাই যথেষ্ট।

কোন এলোভেরা জেল ব্যবহার করবেন এবং কিভাবে করবেন?

অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন, আপনারা বাজার থেকে কেনা এলোভেরা জেল ব্যবহার করবেন নাকি একদম প্রাকৃতিক ভাবে যে এলোভেরা পাওয়া যায় তা থেকে কেটে এলোভেরা জেল ব্যবহার করবেন। আমাদের পরামর্শ থাকবে আপনার কাছে যদি সম্ভব হয় আপনি প্রাকৃতিক এলোভেরাটিই কিনতে পারছেন এবং তা থেকে জেল বের করে ব্যবহার করতেও আপনার কোনো এলার্জির সমস্যা হচ্ছেনা তাহলে প্রাকৃতিকভাবে উৎপাদন করা এলোভেরা টিই ব্যবহার করুন।

অনেকে এলোভেরা ঘরের বাগানেই উৎপাদন করে থাকেন। প্রাকৃতিক এলোভেরা কিনে বা সংগ্রহ করে ব্যবহার করার ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন প্রথমেই এটি ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিবেন।তারপর এর নিচের মোটা অংশ টি কেটে হলুদ আঠালো অংশটুকু ভালো ভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে। এই আঠালো অংশ টি আপনার এলার্জির কারণ হতে পারে। এখন বাকি এলোভেরাটির দুপাশ অল্প করে কেটে চামচ দিয়ে জেল সংগ্রহ করে নিন। এবং তা ভালোভাবে ব্লেন্ড করে অন্যান্য নানা উপাদান এর সাথে মিক্স করে ব্যবহার করুন।

এখন আপনার যদি মনেহয় যে বাজারে তৈরি করা কোনো এলোভেরা জেল ভালো, আপনি চাইলে বিশ্বাস করতে পারছেন তাহলে সেই প্যাকেটজাত এলোভেরা কিনেও আপনি ব্যবহার করতে পারেন। এবং অন্যান্য প্রাকৃতিক উপাদান এর সাথে মিক্স করে ব্যবহার করলেও কোনো অসুবিধা হবেনা।

এলোভেরা জেল এমন একটি প্রাকৃতিক উপাদান যা চুল এবং ত্বকের যত্নে যুগ-যুগ ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে। শুধু প্রয়োজন নিয়মিত এর ব্যবহার সম্পর্কে ধারণা নেয়া এবং ব্যবহার করা।

কিন্তু যেকোনো প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার এর পূর্বেই যেমনটি আমরা বলে রাখি আপনি অবশ্যই জেনে নিবেন সেই উপাদান থেকে আপনার অ্যালার্জির সমস্যা হচ্ছে কিনা। অর্থাৎ একটি প্যাচ টেস্ট করে নিবেন। এবং উপাদান টি আপনি ডিরেক্ট ব্যবহার করতে পারছেন কিনা তা পরীক্ষা করে নিবেন।

সাধারনত এলোভেরা ব্যবহারের মানুষের কোন ক্ষতি হয় না। এবং আমাদের বর্ণনা করা প্রতিটি এলোভেরার হেয়ার প্যাকই এক বা একাধিক উপাদানের সাথে মিক্স করে বানানো হয়েছে। এতে এলার্জি হবার সম্ভাবনা একেবারেই কম। এবং আপনি সহজেই এই প্যাকগুলো আপনার ঘরে বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (17 Reviews)
Subna Islam
Subna Islam
Articles: 36

Leave a Reply

Your email address will not be published.