ত্বকের জন্য পেঁপের উপকারিতা এবং কীভাবে ব্যবহার করবেন

পেঁপে শুধু খেতেই সুস্বাদু নয়, পুষ্টিগুণে ভরপুর হওয়ায় এটি স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। পেঁপে ভিটামিন এ, বি এবং সি সমৃদ্ধ। এতে প্যাপেইনের মতো অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি-ফাঙ্গাল এবং অ্যান্টি-ভাইরাল বৈশিষ্ট্যও রয়েছে। এই কারণেই পেঁপে ঘরোয়া উপায় হিসেবেও ব্যবহৃত হয়। এটি ত্বকের জন্যও উপকারী। এর ব্যবহারে বলিরেখা কমানো যায় এবং ব্রণ নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

আজ এই পোস্টে ত্বকের জন্য পেঁপের উপকারিতা এবং কীভাবে এটি প্রয়োগ করা যায় তা সম্পর্কে জানবো।

আরো পড়ুনঃ পেঁপের উপকারিতা ও অপকারিতা

ত্বকের জন্য পেঁপের উপকারিতা

পেঁপে ত্বককে টোনড আপ রাখতে এবং তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে। পেঁপেতে পাওয়া ভিটামিন-সি এবং লাইকোপেন শুধু ত্বককে রক্ষা করে না, ত্বকে বার্ধক্যের প্রভাব কমাতেও সাহায্য করে। আসুন জেনে নেই ত্বকের জন্য পেঁপের উপকারিতা সম্পর্কে-

ত্বক রক্ষা করতে পেঁপের ব্যবহার

একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, পেঁপে ভিটামিন-সি এবং লাইকোপিনের পাশাপাশি প্রচুর পুষ্টিগুণে ভরপুর। এই পুষ্টি উপাদানগুলি শুধুমাত্র ত্বককে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে না, ত্বকের সমস্যাগুলির সাথে লড়াই করে। পেঁপেতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, সূর্যের এক্সপোজারের ফলে সৃষ্ট সমস্যাগুলি থেকে ত্বককে পুনরুদ্ধার করতে সহায়তা করতে পারে।

এন্টি এইজিং সাইন

পেঁপে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন এ, সি, কে, ই এবং বি এর পাশাপাশি ক্যালসিয়াম,পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং ফসফরাসের মতো অনেক খনিজ পদার্থে সমৃদ্ধ। এটি ত্বককে বলিরেখা থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। পেঁপেতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে, যা ত্বকে ফ্রি র‍্যাডিকেলের কারণে সৃষ্ট ক্ষতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে বার্ধক্যজনিত প্রভাব ও লক্ষণ কমাতে সাহায্য করতে পারে।

ত্বকের এক্সফোলিয়েট হিসেবে কাজ করে

পেঁপেতে উপস্থিত Papain এনজাইম শুধুমাত্র অ্যান্টি-এজিং হিসেবেই কাজ করে না, এটি ত্বকের মৃত কোষকেও এক্সফোলিয়েট করে। ছিদ্র খোলার পাশাপাশি এটি ব্রণের কারণে সৃষ্ট দাগ দূর করতেও কাজ করে। এটি ত্বককে হাইড্রেট করতেও কাজ করে।

ব্রণ নিয়ন্ত্রণ করতে পেঁপের ব্যবহার

পেঁপেতে উপস্থিত প্যাপেইন এনজাইম ত্বকের পোরস বা ছিদ্রে আটকে থাকা ময়লা পরিষ্কার করে ব্রণ কমাতে সাহায্য করে। শুধু তাই নয়, ক্ষতিগ্রস্থ কেরাটিন অপসারণের ক্ষমতাও পেপেইনের রয়েছে। আসলে, ক্ষতিগ্রস্থ কেরাটিন ত্বকে বিস্তার হলে তা ছোট ছোট ফুসকুড়িতে রূপ নেয়। ২০১৭ সালের একটি গবেষণা অনুসারে, ব্রণের কারণে ত্বকের দাগ দূর করতে পারে প্যাপেইন।

আরো পড়ুনঃ ব্রণের উপর নারিকেল তেল: এটি ভাল না খারাপ?, 12টি অভ্যাস যা ব্রণকে আরও খারাপ করে তোলে, ব্রণ দূর করার উপায়ঃ ঘরোয়া পদ্ধতি

কিভাবে ত্বকে পেঁপে লাগাবেন?

পেঁপের ফেসপ্যাক দিয়ে পিগমেন্টেশন, ট্যানিং এবং অ্যান্টি-এজিং এর মতো অনেক সমস্যা দূর করা যায়। মজার ব্যাপার হল ,আপনি সহজেই ঘরে বসেই এই ফেসপ্যাক তৈরি করতে পারেন। আসুন জেনে নেই ত্বকের ধরন অনুযায়ী পেঁপে ব্যবহারের পদ্ধতি সম্পর্কে-

শুষ্ক ত্বকের জন্য পেঁপে

মধু এবং পেঁপের মিশ্রণে তৈরি ফেইসপ্যাক শুষ্ক ত্বকের জন্য একটি ভাল ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করতে পারে। মধু এবং পেঁপে উভয়ই ত্বককে এক্সফোলিয়েট এবং হাইড্রেট করে। এটি ত্বককে নরম, মসৃণ এবং পুষ্ট করে।

ব্যবহারবিধি –

  • আধা কাপ পাকা পেঁপের মধ্যে ১ চা চামচ মধু এবং ২ চা চামচ তাজা দুধ মিশিয়ে নিন।
  • ভালো করে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।
  • তারপর এই পেস্টটি আপনার মুখে এবং ঘাড়ে লাগান।
  • এটিকে প্রায় ১৫-২০ মিনিটের জন্য শুকাতে দিন।
  • তারপরে হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং তারপরে মুখে সিরাম বা ময়েশ্চারাইজার লাগান।

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য পেঁপে

তৈলাক্ত ত্বকে পেঁপের ফেইসপ্যাক লাগালে তা ত্বকের আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রণ করে এবং ত্বক উজ্জ্বল করে। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য তৈরি পেঁপের ফেইসপ্যাকে লেবুর রস বিশেষভাবে যোগ করা হয়।কিন্তু এর আগে অবশ্যই জেনে নিবেন আপনার লেবুতে এলার্জি আছে কিনা। এবং ত্বকে লেবু ব্যবহার এ অবশ্যই সর্তক থাকবেন।

ব্যবহারবিধি –

  • আধা কাপ ম্যাশ করা পেঁপের মধ্যে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস মেশান।
  • মিশ্রণ টি আপনার সারা ত্বকে ১৫ মিনিটের জন্য রাখুন।
  • এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

আরো পড়ুনঃ ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির খাবার তালিকাঃ কমপ্লিট ডায়েট প্ল্যান, মুখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির উপায় 15 টি ঘরোয়া প্রতিকার, এলোভেরা দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়, এলোভেরা দিয়ে মুখের যত্ন নেয়ার নিয়ম

ব্রণ প্রবণ ত্বকের জন্য পেঁপে

যাদের ব্রণের সমস্যা অনেক বেশি তাদের জন্য এই ফেইসপ্যাক কার্যকরী। এই ফেইসপ্যাকের জন্য ডিমের সাদা অংশ এবং পাকা পেঁপে প্রয়োজন ।এই ফেইসপ্যাকটি ত্বকের পোরস টাইট করতে, সিবামের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে এবং ত্বকের উন্নতিতে সাহায্য করে থাকে।

ব্যবহারবিধি –

  • একটি ডিম নিন এবং ডিমের কুসুম থেকে ডিমের সাদা অংশ আলাদা করুন।
  • কিছু পেঁপে মাখুন এবং ডিমের সাদা অংশ এর সাথে যোগ করুন।
  • এটি ১০ ​​মিনিটের জন্য ত্বকে ব্যবহার করুন।
  • তারপর ফেইসওয়াস বা অর্গানিক কোনো ক্লিনজার দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন।

ত্বক উজ্জ্বল ও পিগমেন্টেশনের জন্য পেঁপের ব্যবহার

পেঁপেতে ত্বক উজ্জ্বল করার গুনাগুন রয়েছে, যা ট্যান, বলিরেখা এবং ত্বকের নিস্তেজ ভাব দূর করতে সাহায্য করে। পিগমেন্টেশন এবং উজ্জ্বল ত্বকের জন্য পেঁপের ফেইসপ্যাকে টমেটোর রস ব্যবহার করা প্রয়োজন। টমেটো ট্যান কমাতে সাহায্য করে।

ব্যবহারবিধি –

  • টমেটোর রস বা পাল্পে আধা কাপ পাকা পেঁপে মিশিয়ে নিন।
  • এটি আপনার মুখ এবং ঘাড়ে প্রয়োগ করুন এবং এটি শুকানোর জন্য অপেক্ষা করুন।
  • শুকিয়ে গেলে তাজা পানি দিয়ে মুখ ও ঘাড় ধুয়ে ফেলুন।
  • এর পর কোনো ভালো ময়েশ্চারাইজার লাগাতে ভুলবেন না।

ত্বক টান টান করার জন্য পেঁপের ব্যবহার

ডিমের সাদা অংশ দিয়ে পেঁপের ফেইসপ্যাক ত্বক টানটান করতে সাহায্য করে। ডিমের সাদা অংশ ত্বককে টানটান করার পাশাপাশি ত্বকের পোরস কমাতে কাজ করে। পেঁপের সাথে ডিমের এই সাদা অংশ মেশানো হলে, এটি ত্বকের কোলাজেনকে প্রভাবিত করে, যা ত্বককে টোনডআপ এবং উজ্জ্বল করে তোলে।

ব্যবহারবিধি –

  • আধা কাপ পাকা পেঁপে একটি ডিমের সাদা অংশের সাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।
  • এই পেস্টটি ত্বকে ১৫ থেকে ২০ মিনিটের জন্য লাগিয়ে রাখুন। শুকানোর পরে ফেইসওয়াস বা অর্গানিক কোনো ক্লিনজার দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
  • ধোয়ার পর ময়েশ্চারাইজার লাগাতে ভুলবেন না।

ত্বকের গভীর থেকে পরিস্কারের জন্য পেঁপের ব্যবহার

ক্লক হয়ে যাওয়া ওপেন পোরস ত্বকে নানা সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে এবং এই ক্ষেত্রে পেঁপে এবং চন্দন এর ফেইসপ্যাক উপকারী হতে পারে। যদিও মধু একটি অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এজেন্ট হিসাবে কাজ করে, চন্দন পাউডার ব্রণের সংক্রমণ কমাতে সাহায্য করে। পেঁপে, চন্দন এবং মধুর মিশ্রণ ব্রণ দূর করতে এবং ত্বককে উজ্জ্বল করতে কাজ করে।

ব্যবহারবিধি –

  • আধা কাপ পাকা পেঁপেতে ১/২ চা চামচ লেবুর রস, ১ চা চামচ চন্দন গুঁড়ো এবং ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।
  • এই পেস্টটি আপনার মুখে এবং ঘাড়ে লাগান।
  • এটি ১৫ থেকে ২০ মিনিটের জন্য শুকিয়ে নিন তারপর মুখ ধুয়ে ফেলুন।
  • এই প্যাকটি ব্যবহারের পরেও ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

সারসংক্ষেপ

পেঁপে অনেক পুষ্টিগুণে ভরপুর। পেঁপে বার্ধক্যজনিত লক্ষণগুলি কমিয়ে ত্বককে মসৃণ করে এবং তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করতে পারে। শুধু ডায়েটেই নয়, ত্বকের যত্নের রুটিনেও পেঁপে অন্তর্ভুক্ত করার অনেক উপকারিতা রয়েছে। পেঁপেতে উপস্থিত এনজাইমগুলি অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি-ফাঙ্গাল এবং অ্যান্টি-ভাইরাল বৈশিষ্ট্যে সমৃদ্ধ। বলিরেখা, ত্বকের ঝুলে পড়া ভাব এবং ব্রণের সমস্যায় পেঁপেতে বিদ্যমান এই সব গুণাগুণ খুবই কার্যকর।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (10 Reviews)

Leave a Reply

Your email address will not be published.