বেসন মুখে মাখার উপকারিতা

আমরা জানি আমাদের রান্নাঘরেই এমন অনেক উপাদান রয়েছে যা আমাদের ত্বক এবং শরীরের সৌন্দর্য বর্ধনে নানা ধরনের কাজ করে থাকে। আমরা অনেকেই এসব উপাদান সম্পর্কে জানি আবার আমরা অনেকেই জানি না। অনেকেই উপাদান গুলোর নাম জানলেও এর সঠিক ব্যবহার এবং আদৌ সেই প্রাকৃতিক উপাদান টি আপনার ত্বকের যত্নে ব্যবহার করতে পারবেন কিনা সে সম্পর্কে সঠিক ধারণা পাইনা।

ফলস্বরূপ হাজার হাজার টাকা খরচ করে আমরা পার্লার এ যাই সুন্দর হবার জন্য। আসলে সৌন্দর্য এমন একটি বিষয় যার জন্য প্রতিনিয়ত কেয়ার এবং চর্চা প্রয়োজন। তাহলেই আপনি সেই সৌন্দর্য ধরে রাখতে পারবেন।

এছাড়া বার্ধক্য জনিত কারণে যেসব সমস্যা দেখা দেয় তার জন্য আমাদের তেমন কিছুই করার থাকেনা। তাই আজকে সৌন্দর্য বর্ধনের যে হোম রেমেডিটি নিয়ে আমরা জানবো তা হলো বেসন।
বেসন মুখে মাখার বেশ কিছু উপকারিতা রয়েছে। এবং সবচেয়ে বড় বিষয় হলো এটি অনেক সহজলভ্য। আমাদের রান্নাঘরে এই উপাদান টি অনেক সহজেই পাওয়া যায়।

মুখে বেসন ব্যবহার এর উপকারিতা

বেসন যেকোনো ত্বকের জন্যই অনেক উপকারী একটি উপাদান। শুষ্ক থেকে কম্বিনেশন ত্বকের যারা আছেন তাদের জন্য এটি এক আশীর্বাদ এর নাম। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ও এটি অনেক উপকারী। আপনি যেকোনো ত্বকের অধিকারী হোন না কেনো বেসন ব্যবহার করতে পারবেন, শুধু জেনে নেয়া প্রয়োজন কখন ব্যবহার করবেন আর কিভাবে ব্যবহার করবেন।

বেসন আমাদের ত্বককে গভীরভাবে পরিষ্কার করে। অর্থাৎ এটি আমাদের ত্বকের জন্য একটি এক্সফোলিয়েটর হিসেবে কাজ করে। যার বিটস বা দানা আমাদের ত্বকের ভিতর থেকে ময়লা তুলে আনে। এবং ত্বককে পরিবর্তে যেকোনো ফেইসপ্যাক ব্যবহার এর জন্য ও উপযুক্ত করে তোলে।এছাড়া ত্বক পরিষ্কার থাকলে ব্রণ হবার সম্ভাবনা ও অনেক কমে যায়।

বেসন ত্বক ময়েশ্চারাইজ করতে অনেক কার্যকরী। তাই শুষ্ক ত্বকে বেসন এবং মধুর ফেইসপ্যাক দুর্দান্ত কাজ করে থাকে।

এটি নিয়মিত ব্যবহারে আমাদের ত্বকের হারিয়ে যাওয়া উজ্জ্বলতা ফিরে আসে।

এটি রোদে পোড়া কালো দাগ তুলে ফেলার ক্ষমতা রাখে। এমনকি দীর্ঘদিন এর সান টেন রিমুভ করতে ও সাহায্য করে বেসন।

আরো পড়ুনঃ ফেস মাস্ক ব্যবহারের নিয়ম, ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার উপায়, দুধ দিয়ে ত্বকের যত্ন এবং চুলের যত্ন নেয়ার নিয়ম

আমাদের একটু অসচেতনতার কারণে ও আমাদের ত্বকে ব্রণ এর দাগ পড়ে যায়। অনেকেই ইচ্ছে করে বা অবচেতন মনেও নখ দিয়ে ব্রণ এ আঘাত করে থাকেন। এতে ব্রণের বিস্ফোরণ ঘটে ত্বকের ভিতরে। তখন একটি থেকে এরকম বেশ কিছু নতুন ব্রণ এর জন্ম হয়। এই সবকিছু থেকে চিরকাল এর জন্য মুক্তির জন্য বেসন ব্যবহার করা উচিত নিয়মিত। এর ব্যবহারে ব্রণ হবার সম্ভাবনা কমে এবং ব্রণের দাগ ও দূর হয়।

আমাদের প্রত্যেকের মুখে ধুলো ময়লায় চাপ, ডেড সেল বা মরা চামড়া থাকে। যেহেতু নিয়মিত হয়তো সময় এর অভাবে আমাদের স্ক্রিন ডিপলি ক্লিন করা হয় না। তাই সপ্তাহে ১-২ দিন যদি আপনি সময় করে বেসন ব্যবহার করতে পারেন। তাহলে আপনার দাগ আর ডেড সেল ও উঠে আসবে এবং অনেক নরম এবং উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।

এখন প্রাকৃতিক উপাদান সমূহ যতই উপকারী হোক না কেনো আপনি সেসব ব্যবহার এর পূর্বে অবশ্যই আপনার ত্বকের ধরন, কিভাবে, কখন ব্যবহার করবেন, কোন কোন উপাদান এর সাথে মিক্স করা যাবে, অথবা আপনার এলার্জির সমস্যা আছে কিনা এসব কিছু জেনে, প্যাচ টেস্ট করে তবেই ব্যবহার করবেন।

আমাদের উদ্দেশ্য থাকে যথাযোগ্য তথ্য প্রদান করে তবেই আমাদের পোস্ট গুলো লিখি। আশা করি এতে আপনারা অনেক উপকৃত হবেন।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (9 Reviews)
Subna Islam
Subna Islam
Articles: 36

Leave a Reply

Your email address will not be published.