মুখে কাঁচা হলুদের উপকারিতা এবং ব্যবহারের নিয়ম

হলুদকে বলা হয় সোনালী মসলা। এর উৎপত্তিস্থল পাক-ভারত উপমহাদেশে। মসলা হিসেবে হলুদের ব্যবহার ব্যাপক। রূপ চর্চার অন্যতম প্রধান উপাদান হিসেবেও এশিয়া মহাদেশ এর বিভিন্ন অঞ্চলেই হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে সেই প্রাচীনকাল থেকে।

এসব ছাড়াও এন্টিসেপটিক, এন্টিঅক্সিডেন্ট, এন্টি এজিং, এবং anti-inflammatory সহ বিভিন্ন ভেষজ গুনের জন্য হলুদের ব্যবহার হয়েই থাকে।

মুখে কাঁচা হলুদের উপকারিতা

কাঁচা হলুদ রুপচর্চার অন্যতম উপাদান। আর আমরা ইতোমধ্যে জেনেছি কাঁচা হলুদে আছে এন্টি এজিং উপাদান তাই ত্বক থেকে বয়সের ছাপ দূর করতে হলুদের জুড়ি নেই। আবার অন্যদিকে হলুদ এন্টিসেপটিক হিসেবে ও চমৎকার কাজ করে তাই ব্রণ দূর করতে এবং ক্ষত সারাতেও এটি অতুলনীয়।

এই চমৎকার প্রাকৃতিক উপাদানটি ব্রণের ইনফেকশন কমানো হতে শুরু করে ব্রণের দাগ দূর করতেও ব্যবহৃত হয়। যাদের ত্বকে অনেক দাগ আছে তাদের জন্য কাঁচা হলুদ জাদুর মত কাজ করে। শুধুমাত্র হলুদের বিভিন্ন ফেইসপ্যাক ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি পেতে পারেন সুন্দর ত্বক।

কাঁচা হলুদের নানা উপকারিতা সম্পর্কে তো আমরা জানলাম। এখন আমরা জেনে নিবো কিভাবে এটি ব্যবহার করলে আমাদের ত্বক উজ্জ্বল, দাগহীন এবং প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে।

ব্রণের সমস্যায় কাঁচা হলুদ ব্যবহারের নিয়ম

ব্রণের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কাঁচা হলুদ বাটা আঙুরের রস ও গোলাপজল মিশিয়ে ব্রণের ওপর লাগিয়ে রাখুন। ৫-১০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণগুলো চামড়ার সাথে মিলিয়ে যাবে এবং ইনফেকশন হবার সম্ভাবনাও থাকবে না।

এটি ছাড়াও কাঁচা হলুদ বেটে রস করে নিন এই হলুদের রস এর সাথে মুলতানি মাটি ও নিমপাতার রস একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট করুন। এই পেস্ট ফেইসপ্যাক এর মত পুরো মুখে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে এলে হাতে গোলাপজল নিয়ে আলতো করে ম্যাসাজ করে নিন এবং পানির সাহায্যে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের প্রকোপ কমবে।

ব্রণের দাগ দূর করতে কাঁচা হলুদ ও নিমপাতা বেটে দাগের ওপর লাগান কিছুদিন লাগালে দাগ মিলিয়ে যাবে।

আরো পড়ুনঃ ব্রণের উপর নারিকেল তেল: এটি ভাল না খারাপ?, ব্রণ দূর করার উপায়ঃ ঘরোয়া পদ্ধতি, 12টি অভ্যাস যা ব্রণকে আরও খারাপ করে তোলে

অবাঞ্ছিত লোমের আধিক্য কমাতে কাঁচা হলুদ এর ব্যবহার

যাদের মুখে লোমের পরিমাণ অনেক বেশি তারা এক চা চামচ হলুদ গুড়া সাথে আধা কাপ দই মিশিয়ে লাগিয়ে রাখুন। ১৫ মিনিট পর প্যাক টি ম্যাসাজ করে উঠিয়ে ফেলুন।

যাদের মুখে অবাঞ্ছিত লোমের আধিক্য দেখা যায় তারা যদি নিয়মিত হলুদের ব্যবহার করেন তাহলে ধীরে ধীরে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। এজন্য এক চামচ হলুদ বাটা ২ চা চামচ বেসন মিশিয়ে লাগিয়ে রাখুন শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে হেয়ার গ্রোথ কমে যাবে।

ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ ও দাগমুক্ত করতে কাঁচা হলুদ এর ব্যবহার

ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃন করতেও কাঁচা হলুদ অনেক উপকারী। আর তাই কাঁচা হলুদ বাটার সাথে বেসন চালের গুঁড়া ও টকদই মিশিয়ে নিন।এবার এই মিশ্রণটি মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে হালকা ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি সপ্তাহে তিনদিন লাগালে ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ হবে।

কাঁচা হলুদ ও শুকনো কমলার খোসা একত্রে বেটে স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন এতে ত্বকে আসবে অন্যরকম সৌন্দর্য।

বলিরেখা দূর করতে কাঁচা হলুদের সাথে দুধের শ্বর মিশিয়ে মুখে মাখুন নিয়মিত এই প্যাক লাগালে অবশ্যই উপকার পাবেন।

রোদে পোড়া দাগ কমাতে মসুরের ডাল বাটার সাথে কাঁচা হলুদ বাটা ও মধু একসাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগান।

যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে তারা হলুদ মেশানো পানিতে গোসল করতে পারেন এতে এলার্জির সমস্যা অনেকটাই কমে যায়।

দুধের সাথে মধু মিশিয়ে ব্যবহার করুন এতে ত্বকের জ্বালা পোড়া ভাব দূর করে ত্বককে রাখে প্রানবন্ত।

সতর্কতা: মনে রাখবেন হলুদ দিয়ে কখনই রোদে যাবেন না। এতে ত্বক পুড়ে যাবে এবং কালো হয়ে যাবে। হলুদ দিয়ে রূপচর্চা রাতে করাই ভালো।দিনের বেলা আমরা অবচেতন মনেও রোদে চলে যেতে পারি।এতে করে হলুদের ব্যবহার এ লাভের চেয়ে ক্ষতি টাই বেশি হবে।

আরো পড়ুনঃ দুধ দিয়ে ত্বকের যত্ন এবং চুলের যত্ন নেয়ার নিয়ম, ত্বকের জন্য পেঁপের উপকারিতা এবং কীভাবে ব্যবহার করবেন, আরগান তেল: ত্বকের সমস্যাগুলোর জন্য গোপন অস্ত্র, ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির খাবার তালিকাঃ কমপ্লিট ডায়েট প্ল্যান

কাঁচা হলুদ তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বেশি উপকারী। এছাড়াও অন্যান্য স্কিন টাইপ এর যারা আছেন তারাও এই হলুদ ব্যবহার করতে পারবেন। শুধুমাত্র খেয়াল রাখতে হবে যে শুষ্ক ত্বকের যারা আছেন তাদের প্রয়োজন আর্দ্রতা,তাই তারা কাঁচা হলুদ এর সাথে এমন উপাদান ব্যবহার করবেন যে উপাদান গুলো আপনার ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করবে এবং ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখবে।

অপরদিকে, তৈলাক্ত ত্বকের যারা আছেন তাদের প্রয়োজন তৈল কন্ট্রোল করার মতো উপাদান সমূহ। যাদের ব্রণ অনেক বেশি তারা ব্রণ দূর করবার উপাদান সমূহ দিয়ে ফেইসপ্যাক বানাবেন।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (12 Reviews)
Subna Islam
Subna Islam
Articles: 36

Leave a Reply

Your email address will not be published.