অ্যান্টি-এজিং ফেসপ্যাক: 40 বছর বয়সের পরেও, এই ঘরোয়া প্রতিকারগুলি চেষ্টা করে দেখুন

আজ আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি এমনই এক দুর্দান্ত ঘরোয়া অ্যান্টি-এজিং ফেসপ্যাক, যার সাহায্যে ৪০ বছর বয়সে ৩০ বছরের মতো টানটান ত্বক পাওয়া যাবে।

আপনার বয়স কি ৪০ বছর?
আপনার মুখে কি বলিরেখা আছে?
এবং বলিরেখার কারণে আপনার মুখটি শুকিয়ে যাওয়া মুখের মতো মনে হচ্ছে?

অনেক চেষ্টা করেও আপনি এগুলো থেকে মুক্তি পাচ্ছেন না, তাই এখন আর চিন্তা করার দরকার নেই কারণ আজ আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি এমনই একটি শক্তিশালী ঘরোয়া রেসিপি, যার সাহায্যে ৪০ বছর বয়সে ৩০ বছর বয়সের মতো আঁটোসাঁটো ত্বক পাওয়া যাবে। যদি বিশ্বাস করতে না পারেন, তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই অ্যান্টি-এজিং ফেসপ্যাক টি সম্পর্কে,

৪০ বছর বয়সের পর থেকে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য কমতে শুরু করে তা নয়, মুখে বলিরেখা বাড়তে ও ফ্রিকলস কমতে শুরু করে। এমন পরিস্থিতিতে বলিরেখা দূর করতে মহিলারা কী না করেন। ওষুধ খাওয়া থেকে শুরু করে নানা ধরনের বিউটি প্রডাক্ট গ্রহণ করা, সব ব্যবস্থাই তারা নিয়ে থাকেন। তবে এই সব কিছুর সঙ্গে সঙ্গে সমস্যা তো দূর হয়ই না, নানা ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায় ত্বকে।

যদি আপনার ত্বককে আঁটসাঁট করতে হয় তবে এমন একটি প্রাকৃতিক পদ্ধতি অবলম্বন করুন যা আপনার ত্বককে আঁটসাঁট করার পাশাপাশি ত্বককে উজ্জ্বল, পরিষ্কার এবং সুন্দর করে তুলতে সহায়তা করবে। হ্যাঁ, আজ আমরা আপনাকে এমন একটি চালের প্যাক বলব যা আপনার বার্ধক্যজনিত সমস্যা হ্রাস করবে।

অ্যান্টি-এজিং ফেসপ্যাক এর জন্য উপাদান

• চালের মান্ড – ১ চা-চামচ
• সেদ্ধ ভাত- ২ চা-চামচ
• মধু – ১/২ চা-চামচ
• অ্যালোভেরা জেল-১ চা-চামচ
• গোলাপ জল – একটু
গোলাপ জল, যা মুখের জন্য যাদুর মতো কাজ করে, যার বাজার মূল্য ৭৫ টাকা

কিভাবে একটি অ্যান্টি-এজিং প্যাক তৈরি এবং প্রয়োগ করবেন

• প্রথমে ভাত সেদ্ধ করে নিন।
• ঠিক যেমন খাওয়ার জন্য ভাত সেদ্ধ করেন।
• তারপর ২ চা চামচ সেদ্ধ চাল নিন।
• এতে চালের মান্ড যোগ করুন এবং এটি ভালভাবে পিষে নিন।
• এবার এতে আধা চা-চামচ মধু মিশিয়ে নিন।
• আপনি চাইলে মধুর বদলে অ্যালোভেরা জেল যোগ করতে পারেন।
• পরিশেষে, এতে সামান্য গোলাপ জল যোগ করুন।
• এই সমস্ত জিনিস ভাল করে মিশিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে নিন।
• এবার এটি আপনার মুখ এবং ঘাড়ে প্রয়োগ করুন।
• ১৫ মিনিটের জন্য শুকিয়ে যেতে দিন।

• এরপর স্বাভাবিক পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন।
• এই প্যাকটি ঘাড়ে লাগান কারণ ঘাড়ের বলিরেখা মুখের আগে আসে।

ভাতে ত্বক উজ্জ্বল করার বৈশিষ্ট্য রয়েছে। ভাত ত্বকের ময়লা পরিষ্কার করে, নতুন রং দেয়। এতে ত্বকের মৃত কোষ আলাদা হয়ে যায়, ত্বকের বলিরেখা দূর হয়। সেই সঙ্গে ত্বককে শক্ত করে মসৃণ নরম ও উজ্জ্বল করে তোলে। চালের পানি ত্বকের নমনীয়তা ঠিক করতে সাহায্য করে।

বিশেষ করে শুষ্ক ও ডিহাইড্রেটেড ত্বক। চালের পানিতে রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি যা ত্বককে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

তাহলে আপনারও এই প্যাকটি ট্রাই করে দেখা উচিত এবং ৪০ বছর বয়সে ৩০ বছর বয়সী ত্বক পাওয়া উচিত।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (9 Reviews)

Leave a Reply

Your email address will not be published.