গরুর চর্বি খাওয়ার উপকারিতা

গরুর চর্বি হাই স্যাচুরেটেড ফ্যাটসমৃদ্ধ একটি খাবার। আমরা প্রতিদিন যে ফ্যাটজাতীয় খাবারগুলো খাচ্ছি সেগুলো মূলত দুই ধরনের ফ্যটি এসিড দিয়ে গঠিত।

  • স্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড।
  • আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড।

স্যাচুরেটেড ফ্যাটগুলো সাধারণ তাপমাত্রায় কঠিন অবস্থায় থাকে। কারণ রাসায়নিক গঠনে এদের হাইড্রোকার্বন চেইনে কোনো দ্বিবন্ধন বা ত্রিবন্ধন থাকে না।
হাই স্যাচুরেটেড ফ্যাটযুক্ত খাবার খেতে অনেকে দোটানায় পড়ে যান। কারণ স্যাচুরেটেড ফ্যাট ‘ব্যাড ফ্যাট’, এটা কোলেস্টেরল লেভেল বাড়াবে, হার্ট এটাক, স্ট্রোক হবে এমন ধারনা প্রচলিত। এমন ধারনা থেকে বের হয়ে আসুন।

বরং স্যাচুরেটেড ফ্যাট খাওয়ার সাথে হৃদরোগ বাড়ার সম্পর্ক আদৌ কতটুকু সেটা নিয়ে প্রশ্ন তোলা দরকার। স্যাচুরেটেড ফ্যাট আপনার জন্য ক্ষতির কারণ হবে যখন আপনি এটা রিফাইন্ড কার্বোহাইড্রেট ও রিফাইন্ড অয়েল এর সাথে খাবেন।

কেন গরুর চর্বি খাওয়ার জন্য গুরত্ব দিচ্ছি এবং কিভাবে খাবেন চলুন জেনে নেওয়া যাকঃ

নরমালি আমরা মাংস রান্নার সময় মাংসের সাথেই চর্বিটা দিয়ে দেই। চর্বি বেশি হলে বরং বিরক্ত হই। অথচ এই চর্বিকেই কিন্তু প্রসেস করে কুকিং অয়েল হিসেবে ব্যবহার করতে পারি

কুকিং অয়েল তৈরিঃ চর্বিগুলো মাংস থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে ছোট কিউব করে একটা পাত্রে তাপ দিতে থাকলে আস্তে আস্ত চর্বিগুলো গলে তরল তেলে পরিণত হবে। তরল অংশটুকু আলাদা করে ঠান্ডা করে নিতে হবে, ঠান্ডা হলে বাটারের মত হবে অনেকটা। পছন্দমত রান্নায় বা ভাজাভুজি তে এটাই ব্যবহার করতে পারবেন।

কুকিং অয়েল ভেজিটেবল অয়েল এর থেকে বেশি স্বাস্থ্যকর। বাকি যে অংশটুকু গলবে না সেটা স্ন্যাকস হিসেবে খেতে পারেন।

গরুর চর্বির পুষ্টিগুণ

হেলদি ফ্যাটি এসিডঃ পামিটিক এসিড- আমাদের সেল মেমব্রেনের প্রায় ৫০% স্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড দিয়ে গঠিত। পামিটিক এসিড সেল মেমব্রেনের স্ফিংগোলিপিড গঠন করে, কোষের সিগন্যালিং মলিকিউল হিসেবেও কাজ করে।

স্টিয়ারিক এসিডঃ খুবই কমন একটি স্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড। ব্যাড কোলেস্টেরল বলে খ্যাত LDL এর পরিমাণ কিছুটা কমায় এটা তবে না কমালেও বাড়াবে না
ওমেগা-৭(পালমিটোলিক এসিড)- আমাদের ত্বকের অন্যতম একটা গঠন উপাদান। এছাড়া ও হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ও দেহে ইনসুলিন সেন্সটিভিটি মেইন্টেইনে কাজ করে।

ন্যাচারাল ট্রান্স ফ্যাট কনজুগেটেড লিনোলিক এসিডঃ ট্রান্স ফ্যাট ক্ষতিকর আমরা জানি কিন্তু গরুর চর্বিতে উপস্থিত ন্যাচারাল ট্রান্স ফ্যাট কনজুগেটেড লিনোলিক এসিড কিন্তু মোটেও ক্ষতিকর নয়। বরং এটি ওয়েট লস এবং লিন মাসল গেইনিং প্রসেসে হেল্প করে।

এছাড়াও প্রতি এক টেবিলচামচ তরল চর্বিতে প্রায় ০.৪ গ্রাম ওমেগা-৬ এবং ০.০৮ গ্রাম ওমেগা -৩ বিদ্যমান।

ফ্যাট সলিউবল ভিটামিনঃ ফ্যাট সলিউবল ভিটামিনের উৎস হিসেবে খেতে পারেন। ভিটামিন A,D,E,K এই চারটা ফ্যাট সলিউবল ভিটামিন। ফ্যাট সলিউবল হওয়ার কারণে সহজে শরীর থেকে বের হতে পারে না।

অক্সিডেটিভ ড্যামেজ থেকে বাঁচায়ঃ সেল মেমব্রেনের স্যাচুরেটেড ফ্যাট সেলকে গ্লাইকেশন (ডায়াবেটিস মেলাইটাস, এজিং ইত্যাদির জন্য দায়ী), এন্ডোটক্সিন, অক্সিডেশন প্রসেস গুলো থেকে রক্ষা করে।

স্কিনকে নারিশ করেঃ রূপচর্চায় গরুর চর্বি শুনতে নতুন মনে হলেও এটি কিন্তু কার্যকরী। সেটা খাওয়ার মাধ্যমেও হতে পারে অথবা ত্বকে এপ্লাই করতেও পারেন বাটারের মত করেই।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (106 Reviews)

Leave a Reply

Your email address will not be published.