চুলের জন্য আমলকির উপকারিতা এবং ব্যবহারের নিয়ম

ধুলো, ময়লা এবং দূষণ শুধু ত্বকেরই ক্ষতি করে না চুলেরও ক্ষতি করে। তাই মুখের পাশাপাশি চুলেরও যত্ন নেওয়া দরকার। আজকের পোস্টে আমরা এমনই একটি উপাদানের কথা বলতে যাচ্ছি, যা শুধু চুলের ক্ষতিই রোধ করে না বরং তাদের বৃদ্ধিও ঘটায়। হ্যাঁ, আমরা আমলকির সম্পর্কে কথা বলছি। চুলের জন্য আমলকি কতটা উপকারী এই পোস্টে জেনে নিন।

চুলের জন্য আমলকির উপকারিতা

চুলের জন্য আমলকির অনেক উপকারিতা রয়েছে:

আমলকি চুল পড়া কমায়ঃ চুল পড়ার সমস্যা কমাতে আমলকি উপকারী। চুল পড়ার অন্যতম কারণ হল চুলের ফলিকলে পাওয়া ডার্মাল প্যাপিলা কোষের হ্রাস। আমলকি এর সংখ্যা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, যা চুল পড়া কমায়।

আমলকি চুলের বৃদ্ধি ঘটায়ঃ আমলকি চুলের জন্য খুবই উপকারি। ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে শ্যাম্পু এবং চুলের তেলের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে আমলকি দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এটি চুলের বৃদ্ধি বাড়াতে হেয়ার টনিক হিসেবে কাজ করে।

চুলের বাহ্যিক ক্ষতি থেকে রক্ষা করেঃ চুলকে বাহ্যিক ক্ষতি থেকে রক্ষা করতেও আমলকি ব্যবহার করা হয়। আসলে, আমলকি ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ, যা তাপ বা আলোর কারণে চুলের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে। এছাড়াও এতে রয়েছে আয়রন, ক্যালসিয়াম ও ফসফরাসের মতো খনিজ উপাদান, যা চুলের পুষ্টি যোগাতে কাজ করে।

টিপস: আমলকি ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ এবং সেইসাথে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের সমৃদ্ধ উৎস হিসেবে পরিচিত, যা ত্বককে ফ্রি র‍্যাডিক্যাল থেকে রক্ষা করে।

ফ্ল্যাকি স্কাল্পের ভারসাম্য বজায় রাখেঃ প্রায়শই মাথার ত্বকে একটি পাতলা স্তর বসতে শুরু করে, আমলকি ব্যবহার করেও এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আমলকি পাউডার এবং আমলকি তেল উভয়ই ঐতিহ্যগতভাবে মাথার ত্বকের আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। এছাড়াও, এটি মাথার ত্বককে মসৃণ করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আমলকি তেল কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করেঃ আমলকি তেল দারুণ কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে। ইচ্ছা হলে শুকনো আমলকি বা এর গুঁড়াও নারকেল তেলে সিদ্ধ করে লাগাতে পারেন। এটি একটি খুব কার্যকর কন্ডিশনার হিসাবে বিবেচিত হয়, যা চুলের বৃদ্ধিকে উৎসাহিত করে এবং এটিকে ঝরে পড়া থেকে রোধ করে।

চুলের জন্য আমলকি কীভাবে ব্যবহার করবেন

চুল পড়া চিকিৎসার জন্যঃ যেমনটি আমরা উল্লেখ করেছি যে আমলকি অনেক ধরনের খনিজ পদার্থে সমৃদ্ধ এবং এটি ত্বকের প্যাপিলা কোষ বৃদ্ধি করে চুল পড়া কমায়। আপনার যদি চুল পড়ার সমস্যা থাকে, তবে আপনি নিম্নলিখিত উপায়ে চুলের যত্নের রুটিনে আমলকি অন্তর্ভুক্ত করুন।

• প্রথমে দুই চামচ আমলকির রস নিন।
• তারপর এতে দুই চামচ নারিকেল তেল দিন।
• তারপর সেই মিশ্রণটি আপনার আঙ্গুলের সাহায্যে মাথার ত্বকে লাগিয়ে হালকাভাবে ম্যাসাজ করুন।
• এই মিশ্রণটি ধীরে ধীরে সারা চুলে ভালো করে লাগান।
• এবার এক ঘণ্টা এভাবে থাকতে দিন।
• সময় শেষ হওয়ার পরে, একটি হালকা শ্যাম্পু দিয়ে আপনার চুল ধুয়ে ফেলুন।

আপনি কি জানেন?
আমলকি শুধুমাত্র চুলের জন্যই নয়, ত্বক ও স্বাস্থ্যের জন্যও অত্যন্ত উপকারী।

খুশকির চিকিৎসার জন্যঃ আমলকি খুশকির সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে কার্যকর প্রমাণিত হইয়েছে। আসলে আমলকিতে রয়েছে ভিটামিন-এ এবং ভিটামিন-সি, যা খুশকি প্রতিরোধে সাহায্য করে। এই জন্য, আমলকি নিম্নলিখিত নিয়মে খুশকির চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করুন:

• একটি পাত্রে এক চামচ আমলকির রস, এক চামচ লেবুর রস এবং এক চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন।
• এরপর আঙুলের সাহায্যে এই মিশ্রণটি মাথার ত্বকে ভালো করে লাগান।
• তারপর 10 থেকে 15 মিনিটের মতো রেখে দিন।
• তারপরে হালকা গরম পানি এবং সালফেট মুক্ত শ্যাম্পু দিয়ে আপনার চুল ধুয়ে ফেলুন।

অকালে ধূসর হওয়ার চুলের জন্যঃ ভিটামিন সি, ট্যানিন ছাড়াও আমলকিতে ফসফরাস, আয়রন এবং ক্যালসিয়ামের মতো খনিজ উপাদান রয়েছে যা চুলের পুষ্টি জোগায়। এছাড়াও, এটি চুল কালো করতেও সাহায্য করে। অতএব, যদি অকালে চুল পাকা হওয়ার সমস্যা থাকে, তবে এইভাবে আমলকি ব্যবহার করতে পারেন:

• প্রথমে নারিকেল তেলে কিছু শুকনো আমলকির টুকরো দিয়ে প্রয়োজন অনুযায়ী সিদ্ধ করে নিন।
• তেল ভালোভাবে ফুটে উঠলে ঠান্ডা হতে দিন।
• ঠান্ডা হওয়ার পর সেই তেল চুলে লাগিয়ে সারারাত রেখে দিন।
• পরদিন সকালে হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

চুলে আমলকি ব্যবহারের নিয়ম

চুলে আমলকির রস লাগান

সাদা চুলের সমস্যা দূর করতে আমলকির রস উপকারী। এর জন্য নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন:

• প্রথমে 8 থেকে 10টি আমলকি নিয়ে মিক্সারে ভালো করে ধুয়ে নিন।
• এরপর এতে ৪ থেকে ৫ ফোঁটা লেবুর রস মেশান।
• এবার এই মিশ্রণটি চুলে ভালোভাবে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন।
• এক ঘণ্টা পর পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

চুলে আমলকি হেয়ার প্যাক লাগান

হেয়ার প্যাক হিসেবেও চুলে আমলকি ব্যবহার করা যায়। এর জন্য নিচে উল্লেখিত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করুন:

• একটি পাত্রে দুই চামচ আমলকি গুঁড়ো এবং দুই চামচ শিকাকাই নিন।
• তারপর প্রয়োজনমতো পানি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন।
• এবার সেই মিশ্রণটি চুলে এবং মাথার ত্বকে হেয়ার প্যাকের মতো লাগান।
• এরপর আধা ঘণ্টা এভাবে রেখে দিন।
• সময় শেষ হলে ঠান্ডা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। আপনি চাইলে চুলে শ্যাম্পুও করতে পারেন।

সতর্কতা: আমলকি ব্যবহারের আগে একবার প্যাচ টেস্ট করে নিন। কিছু লোকের আমলকি থেকে অ্যালার্জি হতে পারে, সেক্ষেত্রে আমলকি ব্যবহার তাদের জন্য ক্ষতিকর।

চুলের টনিক হিসাবে আমলকি তেলের ব্যবহার

আমলকি তেল চুলের হেয়ার টনিক হিসেবে কাজ করে। এটি চুলের গোড়ায় গিয়ে পুষ্টি যোগায়, যার ফলে চুল দ্রুত বৃদ্ধি পায় এবং এর রংও ভালো হয়। এজন্য আপনি নিম্নলিখিত নিয়মে আমলকি তেল ব্যবহার করুনঃ

• 8 থেকে 10টি আমলকি নিন এবং পানি ব্যবহার না করে একটি মিক্সারে হালকাভাবে পিষে নিন।
• এবার আমলকি পেস্ট একটি চালুনিতে রেখে তা থেকে রস বের করে নিন।
• এরপর একটি প্যানে এক কাপ নারিকেল তেল ও আমলকির রস দিয়ে আগুনে ফুটিয়ে নিন।
• ১৫ মিনিট পর পানি শুকিয়ে গেলে গ্যাস বন্ধ করে ঠাণ্ডা হতে দিন।
• ঠান্ডা হওয়ার পর মিশ্রণটি একটি পাত্রে ফিল্টার করুন।

আমলকির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি কি?

আমরা যদি আমলকির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে কথা বলি, তাহলে বর্তমানে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে সঠিক গবেষণা হয়নি। কারও যদি সংবেদনশীল ত্বক থাকে, তবে তাদের আমলকি ব্যবহারের কারণে কিছু অসুবিধার সম্মুখীন হতে হতে পারে।

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন – FAQS

আমরা কি রাসায়নিক এবং আমলা পণ্য একসাথে ব্যবহার করতে পারি?

না, আমরা রাসায়নিক এবং আমলি পণ্য একসাথে ব্যবহার করতে পারি না। এতে চুলের ক্ষতি হতে পারে।

আমার চুলে আমলকি কত দিন পর পর ব্যবহার করা উচিৎ?

আমলকি সপ্তাহে একবার তেল বা হেয়ার প্যাক হিসেবে ব্যবহার করা উচিৎ।

আমলকি কি চুলের গঠন পরিবর্তন করে?

হ্যাঁ, আমলকি চুলের গঠন পরিবর্তন করে।

উপসংহার

আমলকি মানবজাতির জন্য প্রকৃতির একটি অমূল্য উপহার। এটি স্বাস্থ্যের পাশাপাশি ত্বক ও চুলের জন্য আয়ুর্বেদে বহু বছর ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এই পোস্টে, আমরা বিশেষভাবে চুলের জন্য আমলকির উপকারিতা সম্পর্কে বলেছি। আপনি যদি চুল সম্পর্কিত যে কোন ধরণের সমস্যার সাথে লড়াই করে থাকেন তবে আজ থেকেই আপনি আপনার চুলের যত্নের রুটিনে আমলকি অন্তর্ভুক্ত করুন।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (11 Reviews)

Leave a Reply

Your email address will not be published.