ফ্রিল্যান্সিং কি?

ফ্রিল্যান্সিং কি, কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করা যায়, এ বিষয়ক প্রশ্ন অনেকের মনেই ঘুরপাক খায়। যারা অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং শব্দটি নতুন শুনেছেন, তাদের কাছে একটু অবাক হওয়ার মতই কথা। কারণ, আগে অনেকেই ভাবতো যে ঘরে বসে টাকা ইনকাম করা যায় না। কিন্তু, আমরা চাইলে ঘরে বসেই ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করতে পারি। আজকের এই পোস্টে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করবো, কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং করে টাকা ইনকাম করবেন।

আপনি হয়তো শুনে থাকবেন যে, অনেকেই এখন ঘরে বসে টাকা ইনকাম করে। এমন কিছু কাজ আছে, যেগুলো আমরা আমদের মেধা খাটিয়ে করে টাকা ইনকাম করতে পারি। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আমাদের প্রয়োজন হবে একটি মোবাইল/ল্যাপ্তপ/কম্পিউতার এবং ইন্টারনেট কানেকশন। এছাড়া, আমরা যে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চাই, সেই কাজটি শিখতে হবে। তাহলেই, অন্যান্য মানুষের মতো আমরাও ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবো।

ফ্রিল্যান্সিং কি?

ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং শব্দের অর্থ হচ্ছে মুক্ত পেশায় নিয়োজিত হয়ে কোনো কাজ করে টাকা ইনকাম করা। অর্থাৎ, আমরা চাইলে আমাদের সুবিধা মতো সময়ে, যেকোনো জায়গায় কাজ করতে পারি। মোবাইল/ কম্পিউটারে ইন্টারনেট সংযুক্ত করে যেকোনো কাজ করে টাকা ইনকাম করার যে মাধ্যম, সেটাই হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আমাদের ধরা-বাধা কোনো নিয়ম নেই। সাধারণত, আমরা যদি কোনো কাজ করি, তাহলে আমাদের অফিস যেতে হয়। সঠিক সময়ে অফিসে উপস্থিত হতে হয়। কিন্তু, ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে একটি স্বাধীন কাজ। নিজেদের ইচ্ছে মতো সময়ে যেকোনো কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবো।

দেশে বসে বিদেশের ক্লায়েন্ট এর জন্য কাজ করতে পারবেন। ফ্রিল্যান্সিং করে বিদেশের ক্লায়েন্ট এর জন্য কাজ করে অনেক বেশি পরিমাণে অর্থ অর্জন করা সম্ভব। তাই তো, অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং পেশাকেই প্রধান পেশা হিসেবে বেঁছে নিয়েছে। আপনিও যদি ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করতে চান, তবে নিচে বিস্তারিত তথ্য পাবেন। 

কি কি দক্ষতা লাগবে ফ্রিল্যান্সিং করতে?

ফ্রিল্যান্সিং কি জানার পর আমাদের অনেকের প্রশ্ন থাকে যে, কি কি দক্ষতা লাগবে ফ্রিল্যান্সিং করতে? যেকোনো কাজ করতে গেলেই আমাদের প্রয়োজন দক্ষতার। দক্ষতা না থাকলে কোনো কাজ সঠিকভাবে করা সম্ভব না। তাই, আমরা যদি ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করতে চাই, তবে আমাদের অবশ্যই দক্ষতা প্রয়োজন হবে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, কি কি দক্ষতা লাগবে ফ্রিল্যান্সিং করতে? ফ্রিল্যান্সিং করার অনেক সেক্টর রয়েছে। আপনি যে সেক্টরে দক্ষ, সেই সেক্টরে কাজ করতে পারেন। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য দক্ষতা অর্জন করতে বিভিন্ন রিসোর্স এর সাহায্য নিতে পারেন। গুগল, ইউটিউব থেকে শিখতে পারেন কিংবা টাকা খরচ করে যেকোনো কোর্স করতে পারেন।

See also  কোলেস্টেরল থেকে মুক্তির উপায়: স্বাস্থ্যকর জীবনের নীতিমালা অনুসরণ

এছাড়া, ফ্রিল্যান্সিং যেহেতু করতে হয় কম্পিউটার দিয়ে, তাই আমাদের কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট এর সাধারণ জ্ঞান থাকতে হবে। যেকোনো রিসোর্স থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য এবং উপাত্ত খুঁজে বের করা জানতে হবে। যেকোনো সমস্যা সমাধান করতে জানতে হবে। এছাড়া প্রয়োজন হবে ইংরেজি জানা। ইংরেজি না জানলে দেশের বাইরে মার্কেটপ্লেসে কাজ করা অনেক কস্টকর হয়ে যাবে। এসব কিছু যদি আপনার জানা থাকে, তাহলেই আপনি ফ্রিল্যান্সিং করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো?

ফ্রিল্যান্সিং কি সেটি তো জানলাম। কিন্তু আমরা ফ্রিল্যান্সিং শিখবো কিভাবে? ফ্রিল্যান্সিং শেখার অনেক উপায় রয়েছে। ফ্রিতে কাজ শিখেও ফ্রিল্যান্সিং করা সম্ভব। এজন্য আমরা গুগল, ইউটিউব এবং বিভিন্ন ওয়েবসাইট এর সাহায্য নিতে পারি। ফ্রিল্যান্সিং শিখার আগে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, কোন কাজ করে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে চাচ্ছেন। ফ্রিল্যান্সিং করার অনেক সেক্টর রয়েছে। নিচে কিছু ফ্রিল্যান্সিং এর সেক্টর উল্লেখ করে দিলাম।

  • ব্লগিং করে ফ্রিল্যান্সিং 
  • ডাটা এন্ট্রি করে ফ্রিল্যান্সিং
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন করে ফ্রিল্যান্সিং
  • ভিডিও এডিটিং করে ফ্রিল্যান্সিং
  • ছবি বিক্রি করে ফ্রিল্যান্সিং
  • ডোমেইন নাম বিক্রি করে ফ্রিল্যান্সিং
  • ওয়েবসাইট বানিয়ে ফ্রিল্যান্সিং
  • ওয়েবসাইট বিক্রি করে ফ্রিল্যান্সিং
  • ডিজিটাল মার্কেটিং

এছাড়াও আরও অনেক উপায় রয়েছে, যেগুলো করে ফ্রিল্যান্সিং করা সম্ভব। আপনাকে রিসার্চ করে বের করতে হবে, কোন কাজটি করে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পছন্দ করেন বা কোন কাজ করে টাকা ইনকাম করার ইচ্ছে আছে আপনার। ধরে নিলাম আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন করে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করতে চান। এখন আপনাকে আগে জানতে হবে গ্রাফিক্স ডিজাইন কি। কিভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে হয়। কি কি সফটওয়্যার লাগে এবং সেসব সফটওয়্যার চালানো জানতে হবে।

এরপর আপনি বিভিন্ন কোর্স করতে পারেন কিংবা ইউটিউব দেখে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারেন। গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার অনেক টিউটোরিয়াল রয়েছে ইউটিউব এ। এভাবেই, আপনি যে কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং করতে চাচ্ছেন, সেটি শিখতে হবে। এজন্য যেকোনো কোর্স করতে পারেন কিংবা ইউটিউব এর সাহায্য নিতে পারেন। ফ্রিল্যান্সিং কি , কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবেন, কি কি দক্ষতা লাগে ফ্রিল্যান্সিং করতে, এসব তো জানা হলো। তো চলুন, এখন জেনে নেয়া যাক ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শুরু করবেন।

See also  ফেসবুকে প্রোফাইল পিকচার - Unique Profile Picture 2023

কিভাবে শুরু করবেন ফ্রিল্যান্সিং?

ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য আমাদের প্রথমেই কাজ শিখতে হবে। এরপর কাজ শিখে আমাদের দক্ষতা অর্জন করতে হবে। দক্ষতা অর্জন করার উপায় হচ্ছে, যে কাজ করবেন, সেটি বারবার চর্চা করা। দক্ষতা অর্জন করলে মার্কেটপ্লেসে কাজ করা অনেক সহজ হয়ে যাবে। যাদের দক্ষতা রয়েছে, তাদের জন্য মার্কেটপ্লেসে কাজের অভাব নেই। কাজ শেখা এবং দক্ষতা অর্জন করার পর প্রথমেই আমাদের মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলতে হবে। ফ্রিল্যান্সিং করার কয়েকটি জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস রয়েছে। আপনি যেকোনো মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারেন। নিচে কিছু জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেসের নাম উল্লেখ করে দিলাম।

  1. Fiverr
  2. Toptal
  3. Jooble
  4. Freelancer.com
  5. Upwork
  6. Flexjobs
  7. SimplyHired
  8. Guru
  9. LinkedIn
  10. Behance
  11. 99designs
  12. Dribbble
  13. People Per Hour
  14. ServiceScape
  15. DesignHill
  16. TaskRabbit

উপরোক্ত সকল মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারবেন। মার্কেটপ্লেসে কাজ পাওয়ার জন্য আপনাকে একটি একাউন্ট খুলতে হবে। এরপর, সেই একাউন্ট ভেরিফাই করতে হবে। একাউন্ট ভেরিফাই হয়ে গেলে গিগ খুলে আপনি যে সার্ভিস দিবেন, সে সমন্ধে পোস্ট করতে হবে। এরপর, বায়ার আপনাকে নক দিবে। বায়ারের সাথে কথা বলে তারপর কাজ শুরু করতে পারবেন। কাজ শেষ জমা দিলে আপনার একাউন্ট এ টাকা চলে আসবে। এরপর সেই টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং করে কত ইনকাম করা যাবে?

ফ্রিল্যান্সিং কি সেটা তো ইতোমধ্যে জেনে গেছেন। আউটসোর্সিং বা ফ্রিল্যান্সিং কি জানার পর অনেকের মনেই প্রশ্ন থাকে, ফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা ইনকাম করা যাবে? এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেয়া সম্ভব না। কারণ, একেক সেক্টরে একেক রকম ইনকাম করতে পারবেন। কোনো সেক্টরে কম এবং কোনো সেক্টরে বেশি। অনেকেই শুধু ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতি মাসে অনেক ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করছে। আপনি চাইলে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। বর্তমান সময়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা সবথেকে বেশি। ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে ফ্রিল্যান্সিং করলে মাসে লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

See also  নরমাল ডেলিভারি হওয়ার উপায় এবং করণীয়

এছাড়াও, আরও অনেক ডিমান্ড ওয়ালা সেক্টর রয়েছে। যেগুলো শিখে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। এজন্য আপনাকে রিসার্চ করতে হবে। এখন আমি যদি বলি গ্রাফিক্স ডিজাইন করলে অনেক বেশি টাকা ইনকাম করা যায়, আপনি সেটি শুনে কি গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ শিখবেন? আপনাকে আগে জানতে হবে। গ্রাফিক্স ডিজাইন কিন্তু সবার জন্য না। যারা ক্রিয়েটিভ, তাদের জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইন বেস্ট চয়েস। এছাড়াও, অন্যান্য সেক্টরেও একই ব্যাপার। আপনাকে আগে কাজ জানতে হবে, যদি আপনার ইচ্ছে থাকে সেই কাজ করার, তবেই সেই সেক্টরে ফ্রিল্যান্সিং করা উচিত। কারণ, ১/২ বছর পর যদি দেখেন যে এই কাজ করার আর ইচ্ছে করছে না, তখন আবারও অন্য কাজ শিখতে হবে।

সাধারণত জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

ফ্রিল্যান্সিং কি?

স্থায়ীভাবে নয়, আবার অফিস থেকেও নয়। বরং, নিজের ইচ্ছে মতো যেকোনো সময়ে কাজ করে টাকা ইনকাম করাই হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং।

ফিল্যান্সিং করতে কী কী দরকার?

ফ্রিল্যান্সিং করতে প্রয়োজন হবে একটি ল্যাপটপ/কম্পিউটার। এবং প্রয়োজন হবে ইন্টারনেট কানেকশন।

এই পোস্টে ফ্রিল্যান্সিং কি , কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবেন, কি কি দক্ষতা লাগে ফ্রিল্যান্সিং করতে এসব বিষয় নিয়ে বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। পোস্ট সম্পর্কিত যেকোনো মতামত বা প্রশ্ন জানাতে পারেন।

আরো পড়ুন: বাংলাদেশ রেলওয়ে সকল ট্রেনের সময়সূচি 2023

Rate this post
Subna Islam
Subna Islam
Articles: 80

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *